কুতুবদিয়ায় ওসির নির্দেশনায় মন্দির কমিটির ত্রাণ বিতরণ

0
85

কাইছার সিকদার:

বিশ্ব মহামারী আতঙ্ক করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সারা দেশ লকডাউনের আজ ১ মাস পেরিয়েছে৷ এই দীর্ঘ সময় ঘরে বন্দি থাকার কারণে মানুষের আয় উপার্জন বন্ধ, ধনী ,গরীব সকলেই সংকটময় সময় পার করছে৷ এক দিকে করোনার আতঙ্ক অন্য দিকে আয় রোজগার বন্ধ তার মধ্যে আবার লকডাউন সব মিলিয়ে এক অসহায়ত্ব দুর্দিনে পরিনত হয়েছে। আবার পেটের ক্ষুধা তাড়া করছে খাদ্যের অভাবে আজ মানুষ দিশেহারা৷ ঠিক সেই মূহুর্তে এক মুটো ত্রাণও যেন চাপিয়ে যায় শত ক্ষুধার্ত মানুষের হা হা কার৷

কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব দিদারুল ফেরদৌস এর বরাত দিয়ে -গত মাসেই দূর্যোগ শুরুর কাছাকাছি সময়ে লেমশিখালি সার্বজনীন শ্রীকৃষ্ণ অদ্বৈত চিন্তাহরি মন্দির পরিচালনা কমিটি এসেছিলেন আমার কাছে, তাদের প্রতি বছরের ন্যায় এবারও মহৌৎসব এর আয়োজনের জন্য, অনুমতি পাবার আবেদন নিয়ে। সংগত কারনেই বর্তমান প্রতিকূল পরিস্থিতিতে এই ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন সম্ভব নয়। বরং কমিটিকে উদ্বুদ্ধ করা হয়, উৎসব আয়োজনের জন্য সংগ্রহীত অর্থ দিয়ে সম্ভব হলে তাদের আশপাশের কর্মহীন মানুষজনের মাঝে সহযোগীতার হাত সম্প্রসারিত করতে। কমিটি আমাদের আহবানে সাড়া দিয়েছেন এবং মহোৎসবের জন্য সংগৃহীত অর্থ দিয়ে তারা ৭০ পরিবারের মাঝে খাদ্যপণ্য বিতরণ করেন।

কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিদারুল ফেরদৌস এর বিচক্ষণ পরামর্শে মহোৎসবের জন্য সংগ্রিহত সমুদয় অর্থ দিয়ে আজ ২৮ এপ্রিল মঙ্গলবার ২০২০ইং তাঁহার (দিদারুল ফেরদৌস) উপস্থিতিতে লেমশিখালি ধুপি পাড়া এলাকার কর্মহীন ধুপি, নাপিত সহ ৭০ পরিবারের মাঝে খাদ্যপণ্য বিতরন করা হয় বলে জানা যায়৷

এ ব্যাপারে ওসি দিদারুল ফেরদৌস জানান, আমার সৌভাগ্য হল এই মহতি উদ্যোগে উপস্থিত থাকতে পেরে, সার্বক্ষণিক দুর্যোগে পতিত মানুষের আর্তনাদে সাড়া দিয়ে দ্বীপবাসীর পাশে রয়েছি, আজ কর্মহীন এই অসহায় সংখ্যালঘু পরিবারের জন্য সামান্য সহযোগিতা করতে পেরে আমার মন সত্যিই আত্মতৃপ্ত৷ তিনি মন্দির কমিটিকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷

খাদ্য বিতরণকালে লেমশিখালি সার্বজনিন শ্রীকৃষ্ণ অদ্বৈত চিন্তাহরি মন্দির পরিচালনা কমিটির সকল নেতাকর্মী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। ত্রাণ সহায়তা প্রাপ্ত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে মন্দির কমিটির নেতৃবৃন্ধ ওসি দিদারুল ফেরদৌস এর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here