চট্রগ্রাম বন্দরে গার্মেন্টস পণ্যের আড়ালে এল জুতা এসি প্রসাধনী

0
88

আল আমিন চট্রগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আনা একটি পণ্যচালান জব্দ করেছে শুল্ক কর্তৃপক্ষ। কাস্টমসের এআইআর (অডিট ইনভেস্টিগেশন এন্ড রিসার্চ) শাখা সূত্র জানায়, রাজধানী ঢাকার শিমু এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান সেলাই মেশিনের খুচরা যন্ত্রাংশ ও এক্সেসরিজ ঘোষণায় হংকং থেকে ২২ মে পণ্য নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে এই চালানটির খালাসের কোন তৎপরতা না দেখে এআইআর শাখার সন্দেহ হয়। এরপর থেকে পণ্য চালানটি নজরদারিতে রাখে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।
পরে মঙ্গলবার সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর উপস্থিতিতে কনটেইনারটির কায়িক পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়। এতে পাওয়া যায় পণ্য ৮৩ হাজহাজাহাজার ৫শ পিস স্কার্ফ, ১ লক্ষ পিস ইনসুলিন সিরিঞ্জ, ৩৭৯ জোড়া জুতা, ৩ টি সাইকেল, ১১৩ টি লেডিস ব্যাগ, ৪০ পিস ঘড়ি, ১০.৮ লিটার শ্যাম্পু, ৩ লিটার ফেসওয়াশ ও ২ টি এয়ারকন্ডিশন। অথচ ওই আমদানিকারক সেলাই মেশিনের খুচরা যন্ত্রাংশ ও এক্সেসরিজ আমদানির ঘোষণা দিয়েছিলেন। চট্টগ্রাম কাস্টমসের উপ কমিশনার নুরুদ্দিন মিলন বলেন, আমদানিকারক কম শুল্কের পণ্য আমদানির ঘোষণায় উচ্চ শুল্ক পণ্য নিয়ে আসে। এটি জানতে পেরে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ যখন নজরদারি শুরু করে তখন আমদানিকারক পণ্য খালাসের প্রক্রিয়া থেকে বিরত থাকে। সাত মাস অতিক্রম করার পর আমরা চালানটির কায়িক পরীক্ষার উদ্যোগ নেই এবং মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য আনার বিষয়টি নিশ্চিত হই। নুরুদ্দিন মিলন বলেন, আমদানিকারক চালানটি খালাস করতে পারলে সরকার কমপক্ষে অর্ধকোটি টাকার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here