চৌফলদন্ডীর চেয়ারম্যানকে যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের অবাঞ্ছিত ঘোষনা

0
90

সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব ওয়াজ করিম বাবুলের নামে সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদের নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, জানা যায় তিনি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ
নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকের চ্যেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর হতে ইউনিয়ন পরিষদ দূর্নীতির বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে পড়েছে।কিছু স্বার্থান্বেষী মহলকে পরিষদের দায়ীত্বভার তুলে দিয়ে নিজে বেহাল তবিয়তে নিজের ব্যবসা বানিজ্য নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।এদিকে, ৩৬০০০০ জনগণের এই ইউনিয়ন পরিষদে র বিভিন্ন কর্মকান্ড যেমন সেবামুলক, উন্নয়ন মুলক, শিক্ষামূলক সবকিছু যেন চলতেছে দায়সার ভাবে।
স্থানীয় ৩ নং ওয়ার্ড এর এম ইউ পি রাশেদুল ইসলাম জানান, হতদরিদ্রদের জন্য আসা ২০ কেজি চালের যে বরাদ্দ তা তিনি কখনো সঠিকভাবে সুষ্ট ও সুষম বন্টন হতে দেখেন নি।যে কোন বরাদ্দ আসার আগে দলীয়করন করে তা বন্টন হয়ে যায়।
এদিকে স্থানীয় আওয়ামী অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীদের অভিযোগ নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের কোন রকম খোজখবর তো রাখেই না বরং তাদের সাথে আপত্তিকর ও অশালীন ভাষায় কথা বলেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে রাতদিন নিরলস ভাবে কাজ করে গেলেও কিছু অসাধু দলীয় দূর্নীতিবাজ নেতাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর এই উন্নয়ন প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। অভিযোগ উঠেছে চৌফলদন্ডীতে এই ধারাবহিকতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে যার প্রমান
সম্প্রতি সময়ে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া গরীব অসহায় মিসকিনদের জন্য এক কালীন ২৫০০ টাকায় স্বজনপ্রীতি ও একই মোবাইল নাম্বারে একাদিক বার ব্যবহার ও গরীবদের টাকা পাইয়ে দেওয়ার অযুহাতে অগ্রিম ৫০০টাকা করে আদায় করার অভিযোগ।তৃনমূলের এমন অভিযোগ উঠায় স্থানীয় যুবলীগ,ছাত্রলীগ প্রধানমন্ত্রীর উপহারের লিস্ট প্রকাশের অনুরোধ করা শর্তেও তার কোন কর্নপাত করে নাই সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন ইউনিয়নের চ্যেয়ারম্যান সচ্ছ জবাবদিহিতার স্বার্থে তাদের তালিকা প্রকাশ করলে ও স্হানীয় চেয়ারম্যান ওয়াজ করিম বাবুল অদ্যবদি তালিকা প্রকাশ করেনি বা এ বিষয়ে গনমাধ্যমে কোন বিবৃতি ও দেয়নি।
এ বিষয়ে স্থানীয় যুবলীগ সভাপতির এডভোকেট মোহাম্মদ ফায়সাল বলেন তাকে নির্বাচিত করার জন্য কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে কিন্তু কর্মীদের দূর সময়ে তিনি খবর রাখেন না।শুধু তাই নয় করোনা মহামারিতে গরীব কর্মীরা তাদের পরিবার নিয়ে কষ্টে আছে এ বিষয়ে তার কোন খবর নেই।এছাড়া প্রধানমন্ত্রী উপহার সহ নানা অনিয়মের সাথে জড়িয়ে পড়ায় আমরা যুবলীগ তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষনা করলাম।

সদর সেচ্ছাসেবকলীগ এর সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আবদুল কাদের জানান,২৫০০ টাকা সুবিধাভোগীদের তালিকা প্রকাশের তৃনমুলের এই দাবী যথেষ্ট যুগোপযোগী, জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন নিয়ে যাতে জনমতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি না হয় সেজন্য নৌকা প্রতীকের চ্যেয়ারম্যান হিসাবে উনার স্বচ্ছ জবাবদিহিতা করার প্রয়োজন ছিল। শত অভিযোগ ও অনুরোধের পর ও এই তালিকা প্রকাশ না করে উনি চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।

এ বিষয়ে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর সাধারন সম্পাদক এডভোকেট জসিম উদ্দিন বলেন তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর হতে আমাদের সাথে কোন যোগাযোগ নেই। আমরাও তার সাথে আগামীতে কাজ করতে চাই না।

এ বিষয়ে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান জিকু বলেন, তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর হতে ছাত্রলীগের খবর নেইনি।আমাদের কর্মীরা অনেক কষ্টে আছে তার বিষয়ে যোগাযোগ করলে সাড়া দেয় না। আমরাও তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষনা করলাম। ছাত্রলীগের সহ সভাপতি শকিফুর রহমান বলেন তিনি নানা অনিয়মে জড়িয়ে গেছেন আমরা আর তার সাথে কাজ করতে চাই না।
জেলা ছাত্রলীগের নির্বাহী সদস্য তানজিদ ওয়াহিদ
লোটাস,ছাত্রলীগ নেতা ফরিদ যুবলীগ নেতা আরফাত,যুবলীগ নেতা রবিউল ইসলাম সহ স্থানীয় ছাত্রলীগ,যুবলীগ,সেচ্ছাসেবকলীগ এর শতাধিক নেতাকর্মী স্থানীয় চেয়ারম্যান ওয়াজ করিম বাবুলকে অবাঞ্ছিত ঘোষনার পক্ষে মত দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here