দেবিদ্বারে চা’য়ের দোকান খুলতে বাধা দেওয়ায় ছাত্রলীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

0
88

মামুনুর রশিদ দেবিদ্বার, কুমিল্লা

দেবিদ্বার উপজেলা ১০নং দক্ষিন গুনাইঘর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড মাশিকারা বাজারে লকডাউনে বন্ধ চায়ের দোকান খোলতে বাধা দেওয়ায় চা দোকানদার সফিকুল ও তার ছোট ভাই শরীফ সহ কয়েক জন সন্ত্রাসী মিলে ছাত্রলীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

করোনা প্রদূর্ভাবের কারনে সারাদেশে লকডাউন ঘোষনা করেছে সরকার। এই লকডাউন বাস্তবায়নে সেচ্ছাসেবী হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে ব্যপক প্রসংসা অর্জন করেছে ছাত্রলীগ। নিজের জিবনের মায়া ত্যাগ করে শহড়ে গ্রামে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে ছাত্রলীগ নামের এই সংগঠনটি। তারা অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে পৌঁছে দিয়েছে বিনামূল্যে। সকলে সম্মিলিত ভাবে চাঁদা সংগ্রহ করে কর্মহীন মানুষের দুয়ারে দুয়ারে খাবার পৌঁছে দিয়েছে। করোনায় মৃত্যুবরণ করা লাসের পাশে যখন পাড়া পরশি কেউ আসছেনা তখন এই ছাত্রলীগ লাসের দাফন কাফনে দ্বায়িত্ব পালন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। লকডাউন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মোতাবেক করোনা মোকাবেলায় হাটে-বাজারে রাস্তা-ঘাটে জন সমাগম কমাতে এবং জন সচেতনতা তৈরীতে কাজ করছে এই ছাত্রলীগ। এরই ধারাবাহিকতায় দেবিদ্বার উপজেলা যখন করোনা হটস্পট হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে এবং প্রশাসনের পক্ষথেকে করোনা আক্রান্ত চিহ্নিত এলাকা গুলি লকডাউন ঘোষনা এবং হাট-বাজারে শুধু ঔষধের দোকান, মোদি দোকান, কাঁচা বাজার সীমিত আকারে খোলা রেখে বাকী সব ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ঘোষনা দেন তখন ১০নং দক্ষিন গুনাইঘর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড মাশিকারা বাজারে লকডাউন ঘোষনা করে স্থানীয় বাজার কর্তৃপক্ষ। ১৭/০৫/২০২০ উক্ত বাজারে দিন দুপুরে চা দোকানদার সফিকুল ও তার ছোট ভাই শরীফ দোকান খোলে। এ সময় ৮নং ওয়াড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাহাবুবুর রহমান খানঁ লকডাউন অমান্য করে চাদোকান খোলার প্রতিবাদ করলে চা দোকানদার সফিকুল ও তার ছোট ভাই শরীফ সহ কয়েক জন সন্ত্রাসী তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। উক্ত হামলায় ছাত্রলীগ নেতা মাহাবুব গুরতর আহত হয়।

এ বিষয়ে মাহাবুব বলেন, আমি ৮নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। কুমিল্লা-৪ দেবিদ্বার আসনের মাননীয় সাংসদ রাজী মোহাম্মদ ফখরুল মহোদয়, কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু কাউছার অনিক ভাই এবং দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ আহব্বায়ক ইকবাল হোসেন রুবেল ভাইয়ের নির্দেশ মোতাবেক এই করোন বিপর্যয়ে জনকল্যানে আমরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছি। আজকে মাশিকারা বাজারে এই করোনা বিপদের সময় লকডাউন না মেনে, সরকারের নিদের্শনা না মেনে সফিকুল ও তার ছোট ভাই শরীফ চা দোকান খোলা রাখায় আমি বন্ধ করতে বলায় তারা আমার উপর অতর্কিত হামলা করেছে এবং আমাকে প্রাননাশের হুমকী দিয়েছে। এসময় খবর পেয়ে আমার এলাকার ছাত্রলীগের সহকর্মী ভাইয়েরা আহত অস্থায় উদ্ধার করে পল্লীচিকিৎসকের মাধ্যমে আমাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়ি পৌঁছে দেয়। আমি আমার নেতা রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এমপি ও দেবিদ্বার প্রশাসনের কাছে এই হামলার সুষ্ঠ বিচার দাবী করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here