রামুর কলেজ ছাত্র নুরুল ইসলামকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা : রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার!

0
521

কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলাধীন রাজারকুল ইউনিয়নের ০১ নং ওয়ার্ডের হাফেজ পাড়ায় (পবিত্র এই রমজান মাসে) গত ১৭ই মে রোজ রবিবার ইফতারের পর হাফেজ পাড়া জামে মসজিদ থেকে মাগরিবের নামাজ আদায় করে আসার পথে আবুল কাশেমের পুত্র কলেজ পড়ুয়া ছাত্র নুরুল ইসলাম (২০) কে খুন করার উদ্দেশ্য কুপিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে একই এলাকার হাফেজ জালালের ছেলে কামাল উদ্দিন (৪০)গং’রা জখম হওয়া নুরুল ইসলামের ভাইয়ের দোকানের তথা ব্যবসার নুরুল ইসলামের কাছে থাকা ১লক্ষাধিক টাকা মারধর করে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে ছিনিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে জখমীর পিতা কামাল উদ্দিন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান মসজিদ থেকে নুরুল ইসলাম নামাজ পড়ে আশার পথে হামলাকারী কামাল উদ্দিনের বাড়ীর সামনে তাকে পথরোধ করে এই ন্যাক্কারজনক হামলা করে বলে জানা যায়।

জখমি নুরুল ইসলাম বলেন আমার কাছে থাকা নগদ এক লক্ষ টাকা একটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেই। আমার চিৎকার চেঁচামেচি শুনে এলাকার কিছু লোক এগিয়ে এসে আমাকে উদ্ধার করে। এবং তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল হতে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদকাসক্তরা পালিয়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও নুরুল ইসলামের ভাষ্যমতে, একই এলাকার জালাল হাফেজের পুত্র কামাল ও হেলাল এবং আলী আহমদের পুত্র ওসমান তারা তিনজনেই প্রধান মদদদাতা ও হামলাকারী। তারা এলাকার ত্রাস ও দীর্ঘদিন ধরে এসব অপকর্মে জড়িত ছিল বলে জানান ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান ঘটনাস্থল হতে নুরুল ইসলাম কে রক্তাক্ত অবস্থায় তাৎক্ষণিক উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরন করি।
উক্ত ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। এবং মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে। এলাকাবাসীর নিরাপত্রা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সেই সাথে ঐ এলাকার অন্যান্য ব্যবসায়িরা অনিরাপত্তায় ভুগছে বলে জানা গেছে। করোনার এই মাহামারী লঘ্নে ও পবিত্র রমজান মাসে খুবই লজ্জাজনক ও ভীতিকর বলে সচেতন মহলের দাবি। নুরুল ইসলামের পরিবারসূত্রে জানা যায়, চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য তারা প্রশাসনের সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনতে জোর দাবি জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here