নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি হাতে অস্ত্র ও কাঁধে ত্রাণ নিয়ে ক্ষুধার্ত মানুষের মাঝে বিতরণ

0
109

আবদুর রশিদ, নাইক্ষ্যংছড়িঃ

আবদুর রশিদ, নাইক্ষ্যংছড়িঃ

প্রায় এক মাস হতে চলেছে প্রাণঘাতী করোনা আতংকে গৃহবন্দী নিন্ম আয়ের খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। কারো স্বামী, কারো পিতা কিংবা কারো সন্তান একমাত্র পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটিই এখন ঘরে কর্মহীন। একদিকে করোনা আর একদিকে পেটের ক্ষুধা। বৈশ্বিক করোনার এই পরিস্থিতিতে ঘরবন্দী অসহায় মানুষগুলো ক্ষুধার জ্বালায় যখন একটু সাহায্যের আশায় পথ পানে, ঠিক তখনি ত্রাণ হাতে নিয়ে অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে হাজীর হলেন নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবির সদস্যরা শত্রু মোকাবেলায় অস্ত্রটি যেমন রয়েছে হাতে আবার সেই হাত দিয়ে কাঁধে তুলে নিলেন মানবতার সেবায় ত্রাণের বস্তা গাড়িতে আবার কখনো পায়ে হেটে ত্রাণ সামগ্রী পৌছে দিলেন।

২৯ এপ্রিল সকাল ১১টার সময় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকা ৮ নং ওয়ার্ড শিয়া পাড়া, ৯ নং ওয়ার্ড যৌথ খামার পাড়া এবং রাজঘাট এলাকায় এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ১১ বিজিবির সুবেদার ওয়াহিদুল ইসলাম সহ বিজিবি সদস্যরা।
সুবেদার ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, নাইক্ষ্যংছড়ির ১১ বিজিবির অধিনায়ক ও জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল আসাদুজ্জামান স্যারের নির্দেশনা অনুযায়ী অসহায়দের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাউল, ডাউল, তৈল, লবন, পিয়াজ, আলু, সাবান।

১১ বিজিবির অধিনায়ক ও জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল আসাদুজ্জামান বলেন, বিজিবি সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি আর্ত মানবতার সেবায় দীর্ঘকাল যাবত কাজ করে আসছে। যেমন অসহায়দের ত্রান সামগ্রী , চিকিৎসা সেবা, শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন, রাস্তাঘাট মেরামত, সহ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আগামীতে ও এধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

তিনি আরও বলেন, প্রাণঘাতি করোনার প্রকোপে নিম্ন আয়ের মানুষ অসহায় হয়ে পড়েছে। তারা ক্ষুধার জ্বালায় বাধ্য হয়ে রাস্তায় নামার চিন্তা করতে পারে। আমরা তাদেরকে ঘরে ঘরে খাবার পৌছে দেয়ার চেষ্টা করছি, যাতে তাদের রাস্তায় বের হতে না হয়।

তিনি আরও বলেন নাইক্ষ্যংছড়ি জোনের পক্ষ থেকে সামান্য উপহার হিসাবে আপনাদের কাছে এই ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছি। আপনারা নিজ নিজ ঘরে থাকুন, বাহিরে যাওয়া বর্জন করুন ও অত্যাবশ্যক হলে নাক-মুখ ঢাকার জন্য কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করুন এবং ফিরে এসে কাপড়টি ধুয়ে ফেলুন। অত্যাবশ্যকীয় ভ্রমণে সাবধানতা অবলম্বন করুন এবং বার বার অল্প অল্প পানি পান করুন। ঘনঘন সাবান দিয়ে ভালো করে ২০ সেকেন্ড হাত ধৌত করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here